বৃহস্পতিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২০, ০৫:৩১ পূর্বাহ্ন

ভুয়া অনলাইন পোর্টালে সংবাদ পরিবেশন করে আ.লীগ সভাপতির মানহানির চেষ্টা

দেশ অরণ্য নিউজ ডেস্ক ||
  • আপডেট সময় শুক্রবার, ৩ জুলাই, ২০২০
  • ৯২৮ পাঠক সংখ্যা

বান্দরবানে কথিত মানবাধিকারকর্মী, ডিজিএফআই ও সাংবাদিক পরিচয়ধারী মহিবুল্লাহ চৌধুরী নামে এক প্রতারক এর বিরুদ্ধে আলোর দিগন্ত নামে ভুয়া অনলাইন নিউজ পোর্টালে ভূমি ও বসতভিটা জবরদখলের সহযোগিতা নিয়ে সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি পাইহ্লা অং মারমাসহ স্থানীয় মৌজার হেডম্যান, পাড়ার কার্বারী, মেম্বারদের নাম জড়িয়ে মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক সংবাদ প্রকাশ করার অভিযোগ উঠেছে।

বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) সদর উপজেলার ২ নং কুহালং ইউনিয়নের চেমী ডলু পাড়ার মাসিংনু মারমা বান্দরবান সদর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

সূত্রে জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) চট্টগ্রাম থেকে প্রকাশিত সম্পাদকের নাম ও ঠিকানা বিহীন আলোর দিগন্ত নামে একটি ভুয়া অনলাইন নিউজ পোর্টালে সদর উপজেলার ২নম্বর কুহালং ইউনিয়নের ৩২৪ নং চেমী মৌজার হেডম্যান পুলু প্রু মারমা, চেমী ডলুপাড়ার পাড়া প্রধান (কারবারি) থোয়াইচাই হ্রী মারমা, ১নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার পুলা অং মারমা, শৈথোয়াই মং মারমা (সুমন) চিংহ্লা মং মারমাসহ সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি পাইহ্লা অং মারমার নাম দিয়ে বসতভিটা ও ভূমি জবর দখলের অভিযোগ এনে মিথ্যা ও ভিত্তিহীন একটি উদ্দেশ্য প্রণোদিত ষড়যন্ত্রমূলক সংবাদ পরিবেশন করেন।

এমনকি ওই নিউজে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শহিদুল ইসলাম চৌধুরীর নামেও মিথ্যা তথ্য দিয়ে সংবাদ পরিবেশন করা হয়।

সরেজমিনে জানা যায়, গত ২০২০ সনের (১৬ ফেব্রুয়ারি) মা‌সিংনু থে‌কে তাদের আত্মীয় মেহ্লা প্রু মারমা ও উ‌মে‌সিং মারমা এরা দুই বোন স্থানীয় হেডম্যান কারবারীদের মাধ্যমে মীমাংসা হয়ে আড়াই লক্ষ টাকার বিনিম‌য়ে একটা ক্রয়-বিক্রয়ের কাঁচা দলিল সম্পাদিত করেন। কিন্তু তারা সে আড়াই লক্ষ টাকা বসত ভিটার মালিক মাসিংনু মারমা‌কে পরিশোধ না করে ক্যমলং পাড়া থে‌কে ওই বৃদ্ধ মহিলাকে এনে অবৈধভাবে বাড়িতে অনুপ্রবেশ করিয়ে জবর দখলের চেষ্টা চালায়।

ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে ৩২৪ নম্বর চেমী মৌজার হেডম্যান পুলু প্রু মারমা বলেন, বিষয়টি পারিবারিক সমস্যা। এটি আমরা আগেও সমাধান করেছিলাম। কিন্তু তারা সেই মীমাংসা না মেনে ওই বৃদ্ধ ও অসুস্থ মহিলাটিকে ক্যমলং পাড়া থে‌কে ডলুপাড়ায় এনে অবৈধভাবে বাড়িতে প্রবেশ করানো হয়েছে। তাদের মধ্যে আড়াই লক্ষ টাকার একটি ক্রয়-বিক্রয় এর দলিলে চুক্তি হয়েছিল। সে চুক্তি অনুযায়ী টাকাগুলো না দিয়েই অবৈধভাবে বাড়িতে প্রবেশ করেন।

এ বিষয়ে পাড়াপ্রধান (কারবারি) থোয়াইচাই হ্রী মারমা ও ওই ওয়ার্ডের সাবেক মেম্বার চিংহ্লা মং মারমা বলেন, ওই বৃদ্ধ মহিলাটি অনেক বছর আগে তার স্বামীর সাথে ছাড়াছাড়ি হয়ে ক্যামলং পাড়ায় তার বাপের বাড়িতে চলে যায়। তার মে‌য়ে মেহ্লা প্রু মারমাসহ তা‌দের স্থানীয় মারমা সমাজের বিচার অনুযায়ী তিন মাসের মধ্যে তাদের আড়াই লক্ষ টাকা যাওয়ার কথা ছিল। ওই টাকাগুলো না দিয়ে অবৈধভাবে তারা বাড়িতে ঢুকে গেছে। ওই বৃদ্ধ মহিলা কিন্তু একজন মদ্যপায়ীঃ এবং মদ খেতে খেতে তার লিভার নষ্ট হয়ে অসুস্থ অবস্থায় আছে। তাকে পুঁজি করে এরা বসতভিটা জবর দখলের চেষ্টা চালাচ্ছে।

ঘটনার বিষয়ে সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি পাইহ্লা অং মারমা বলেন, আসলে জন্মলগ্ন থেকে আমার বসত ভিটা সেটি। সেখানে আমার ভাইয়ের ভাইয়ের স্ত্রীসহ ওরা থাকে। লকডাউনের সুযোগে ক্যমলং পাড়া ওই বৃদ্ধ মহিলার বাবার বাড়ি থেকে চমী ডলুপাড়ায় তার নিজের বাড়িতে উঠেন। তার কয়েকদিন পর মাসিংনু মারমার বসতভিটা দখল করার জন্য অবৈধভাবে প্রবেশ করেন। মা‌সিংনু বাধা‌দি‌লে তাকে জানে মারার হুমকি প্রদান করেন।

সেই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ওই বৃদ্ধ মহিলার মেয়ে মেহ্লা প্রু মারমার কথিত প্রেমিক মানবাধিকার কর্মী, ডিজিএফআই ও সাংবাদিক পরিচয়ধারী মহিবুল্লাহকে দিয়ে ভুয়া নিউজ পোর্টালে আমার দলের নাম ব্যবহার করে আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে। আমি এই ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা ভিত্তিহীন নিউজের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

পাইহ্লা অং মারমা আরো বলেন, ওই কথিত মানবাধিকারকর্মী, ডিজিএফআই ও সাংবাদিক পরিচয়ধারী মহিবুল্লার বিরুদ্ধে রোয়াংছড়ি বাস স্টেশন বৌদ্ধ বিহারের ভান্তের কাছ থেকে চাঁদাবাজির অভিযোগ রয়েছে বান্দরবান সদর থানায়। এবং চট্টগ্রামের কোতোয়ালি থানায় চাঁদাবাজিসহ আরো বহু অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। চাঁদাবাজির মামলায় দীর্ঘদিন জেলও খেটেছে সে।

বান্দরবান সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শহিদুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, এ বিষয়ে আমার এখানে অভিযোগ এসেছে। আসলে বসতভিটা ও ভূমি সংক্রান্ত বিষয়টি দেওয়ানী বিষয়। তাই আমি তাদের আদালতে মামলা করার জন্য পরামর্শ দিয়েছি এবং ভুয়া নিউজ পোর্টালে নিউজ এর ব্যাপারে আমি অবগত হয়েছি।

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো সংবাদ
error: